Text size A A A
Color C C C C
পাতা

প্রকল্প

২২(বাইশ) টি নির্বাচিত জেলায় ক্ষুদ্র দুগ্ধ ও মুরগি খামারীদের সহায়ক সেবাদান প্রকল্প, পঞ্চগড়

Right Arrow: সম্পাদিত কার্যক্রমঃ-

বাস্তবায়নকৃত উপজেলাঃ- বোদা, পঞ্চগড়। বর্তমানে সমাপ্ত

 

Ø        ক্ষুদ্র দুগ্ধ খামারীর প্রশিক্ষণ=১০০ জন

Ø        ক্ষুদ্র পোল্ট্রি খামারীর প্রশিক্ষণ=১০০ জন

Ø        সিবিও প্রশিক্ষণ=২০ জন।

Ø        কমিউনিটি ভ্যাকসিনেটর তৈরী ও প্রশিক্ষণ=১০ জন।

Ø        ডেইরী সমিতির ব্যাংক হিসাব খোলা হয়েছে এবং নিয়মিতভাবে মাসিক সঞ্চয় জমা করা হচ্ছে।

Ø        পোল্ট্রি সমিতির ব্যাংক হিসাব খোলা হয়েছে এবং নিয়মিতভাবে মাসিক সঞ্চয় জমা করা হচ্ছে।

Ø        দুটি সমিতির ব্যাংক হিসাবে মোট ১০৫৯০০/- টাকা সঞ্চয় জমা করা হয়েছে ।

Ø        প্রতিটি খামারে জীবানুনাশক সরবরাহ করা হয়েছে।

Ø       Right Arrow: চলমান কার্যক্রমঃ

১০০% কৃমি মুক্তকরণ সম্পন্ন হয়েছে।

Ø        প্রকল্পের খামারে নিয়মিত চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ বিতরণ করা হচ্ছে।

Ø        নিয়মিত খামার পরিদর্শন করা হচ্ছে এবং খামার লাভজনক করতে প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে।

Ø        কমিউনিটি ভ্যাকসিনেটর দ্বারা নিয়মিতভাবে টিকা প্রদান কার্যক্রম চলছে।

Ø        জেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর হতে খামারীদের নেপিয়ার, জার্মান ঘাস সরবরাহ করা হচ্ছে এবং খামারীদের ঘাস চাষে উদ্বুদ্ধকরণ করা হচেছ।

Ø        নিম্নমানের আঁশজাতীয় খাদ্যের গুনগত মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে UMMB, UMS, UTSপ্রভৃতি কৌশল সম্পর্কে হাতে-কলমে প্রশিক্ষণ প্রদান।

Ø        জেলা প্রাণি হাসপাতাল, পঞ্চগড়ে একটি অত্যাধুনিক প্রাণিখাদ্য বিশ্লেষণ ও মান নিয়ন্ত্রণ গবেষণাগার স্থাপিত হয়েছে এবং সেখানে নিয়মিতভাবে খাদ্যের গুনগত মান পরীক্ষা করা হচ্ছে ( শুষ্ক পদার্থ, আর্দ্রতা, খনিজ পদার্থ, আমিষ, আঁশ, ক্রুট ফ্যাট ইত্যাদি)।

Ø        জেলা প্রাণি হাসপাতালে গবাদিপশুর রোগ নির্ণয়ে গোবর, লিটার ইত্যাদি পরীক্ষা করা হচ্ছে।

Ø        Right Arrow: কিছু প্রস্তাবনাঃ

ক্ষুদ্র দুগ্ধ ও পোল্ট্রি খামারীদের খামার উন্নয়ন ও সম্প্রসারণের জন্য ঋণ সরবরাহের লক্ষ্যে বিভিন্ন এনজিওর সাথে অব্যাহতভাবে যোগাযোগ করা হচ্ছে।

Ø        প্রকল্প অফিস হতে ব্র্যাক (আড়ং দুধ), প্রাণ, আফতাব, ফার্মফ্রেশ প্রভৃতি যে কোন দুগ্ধ সংগ্রহকারী এবং বিপননকারী প্রতিষ্ঠানের সাথে সমঝোতা করে প্রকল্প এলাকায় সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের দুগ্ধ শীতলীকরণ কেন্দ্র স্থাপনের জন্য আহবান করা হচ্ছে। এতে করে গাভীর খামারীরা দালাল /স্থানীয় হোটেল ব্যাবসায়ীদের জিম্মি অবস্থা থেকে মুক্তি পাবে এবং প্রতিযোগিতামূলক বাজার সৃষ্টি হওয়ার জন্য দুধের ন্যায্য মূল্য পাবে।

Ø        ঘাস চাষের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা আশু গ্রহণ করা হোক।

Ø        নিবন্ধিত প্রকল্পের মুরগি খামারগুলোতে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সরকারী হ্যাচারীর বাচ্চা সরবরাহ করা হোক। এতে করে খামারীরা এজেন্ট/ দালাল এর অধিক মুনাফা লাভের প্রভাব হতে রক্ষা পাবে।

Ø        নিবন্ধিত প্রকল্পের মুরগি খামারগুলোকে বৃহৎ খামারগুলোর  বাজার কৌশল থেকে বাঁচাতে সোনালী জাতের হাইব্রীড মুরগী পালনের পরামর্শ প্রদান।